Atheist in Bangladesh

যুদ্ধকে না বলুন

ইরান অবশ্যই একটা কট্টর ধর্মান্ধ রাষ্ট্র। ইরানে কট্টর বর্বর শরিয়া সৌদী আরব থেকে কোন অংশে কম নয়। হাজার হাজার লোকের সামনে টেনে হিছড়ে ক্রেনে উপরে তোলে প্রকাশ্য ফাঁসি দিয়ে থাকে। নারী, শিশু বা বৃদ্ধরাও বাদ যায় না। প্রায় সমস্ত আইনই পুরুষের পক্ষে।

ইরানের সরাসরি ইন্দনে আজ পেলেস্টানিয়ানরা স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। যুগ যুগ ধরে তারা মর্মান্তিক জীবন যাপন করছে।
ইজরাইল অবশ্যই দখলবাজ দেশ। এই বাস্তবতা মেনে নিয়েই জনগণের স্বার্থকে বিবেচনায় নিয়ে কাজ করছে ফাতাহ সহ আরো কয়েকটি দল। কিন্তু ইসলামী নেশা দিয়ে, টাকা পয়সা দিয়ে, অস্ত্র দিয়ে, প্রশিক্ষন দিয়ে ইরান ইচ্ছাকৃত ভাবে পেলেস্টান্য়ানদের বিভ্রান্ত করছে। আমাদের আলো মিডিয়াসহ সব মিডিয়াই মুমিনদের তেল দিয়ে তাদের মন বুঝে মিথ্যার আশ্রয় নিচ্ছে , প্রতারণা করছে।

পেলেস্টাইনের জঙ্গী রাজনৈতিক দল হামাস ও লেবাননের রাজনৈতিক জঙ্গি দল হেজবোল্লাহ
প্রতিষ্ঠাই করেছে ইরান।

ইরান প্রতি বছর কয়েক বিলিয়ন ডলার, অস্ত্র ও প্রশিক্ষন দিয়ে সাপোর্ট দিচ্ছে হামাস ও হেজবোল্লাকে।

ইজরাইলকে নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে পুরু এলাকায় স্বাধীন পেলেস্টাইন গড়ার
অলিক এক স্বপ্ন দেখিয়ে সাধারন
পেলেস্টানিয়ানদের নিয়ে খেলছে হামাস, হেজবুল্লাহ, আর এসবের পেছনেই রয়েছে ইরানের জিউ পলিটিক্যাল কুটচাল, অথবা ইরানের স্বার্থ।

কিন্তু ইউএস ইরানের উপ হামলা করে আরেকটা মৃত্যু উপত্যকা বানাক, এটা কোন ভাবেই কাম্য হতে পারেনা।

ইরান, সৌদী, কুয়েত তথা আরব বর্বর ইসলামী দেশ গুলোর যত সমালোচনা করি তা মুলত রাষ্ট্র নায়কদের, সাধারন মানুষ অবশ্যই নয়। সেখানকার অধিকাংশ মানুষই মুক্তি চায়। আর সেই মুক্তিকামী মানুষরাই মারা যায়, দুর্ভোগের শিকার হয় যুদ্ধের ফলে।

যুদ্ধকে না বলুন।

Print Friendly, PDF & Email

Faysal Hossain Onik