Atheist in Bangladesh

ধর্ম মানুষকে কখনো সভ্য, নৈতিক আর মানবিক করতে পারেনি

পলাশ চন্দ্র সরকারঃ ইসলাম নারীকে দিয়েছে সর্বোচ্চ সম্মান, সীমাহীন মর্যাদা আর নিজেকে বস্তায় বন্দি করে রাখার অধিকার। ইসলামী দেশগুলোতে নারীরাও নিজেদেরকে মনে করেন- মধুর ডিব্বা, নয়তো চিনির বস্তা। একটু খোলা পেলেই তাদের গায়ে মাছি বসবে। মুসলিম পুরুষরাও সারাক্ষণ নারীর পোশাকের ফুটো খুঁজে বেড়ান। আর সে ভয়েই ইসলামী দেশের নারীরা প্রকাশ্যে তাদের শিশুকে দুধ পান করাতেও পারেন না। কারন এসব নারীরা জানেন- তাদের শিশু সন্তানকে দুধ পান করানোর মতো পৃথিবীর সবচেয়ে মাতৃময় দুশ্যটি দেখেও তাদের স্তনটি এক নজর দেখার জন্য উঁকি দেবার মতো পুরুষের অভাব নেই তাদের সমাজে। অন্যদিকে, “মায়ের দুধের মহত্ব” আর “মায়ের দুধের ঋণ” বিষয়ক সংগীত আর সাহিত্য রচিত হয়েছে ইসলামী দেশগুলোতেই বেশী। অথচ, এসব দেশের মানুষই মায়ের দুধ আর নারীর স্তনের মধ্যে পার্থক্যটা জানে না।

আমার দেখা কাফেরদের দেশে মায়েরা যেখানে সেখানে তাদের সন্তানকে প্রকাশ্যে দুধ পান করান। মাতৃত্ব প্রকাশে মায়েদের চোখে কখনো সংকোচ দেখিনি, পুরুষদেরকেও এ দৃশ্যে উঁকি দিতে দেখিনি। শিশুকে মা দুধ পান করাচ্ছেন,- এটা অনেক শতাব্দী আগে থেকেই পৃথিবীর একটা বিরাট অংশে সবচেয়ে শ্রদ্ধার দৃশ্য, সবচেয়ে বড় শিল্প। আর পৃথিবীর আরেকটা অংশে এটা এখনো লজ্জার, সংকোচের বা অশ্লীল। আর বিশ্বের দুটো অংশের এই পার্থক্যের জন্য দায়ী শুধুই “শিক্ষা”।

আসলে ধর্ম মানুষকে কখনো সভ্য, নৈতিক আর মানবিক করতে পারেনি, পারেনা; পারে শুধুই শিক্ষা।

Print Friendly, PDF & Email

Palash Chandra Sarkar