Atheist in Bangladesh

৫৭ ধারা ও প্রধানমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার।

-ধর্ম বিশ্বাসের উপর যারা গালাগাল বা আঘাত দিবে তারা অপরাধী।
-যারা অপরের জানমালের উপর আক্রমন করে তারাও অপরাধী।
-যারা খুন করে, তারাও অপরাধী।

নিচের বক্তব্যগুলো উপরের সব গুলো অপরাধের প্রমাণ। প্রধানমন্ত্রীও নিয়মিত নামাজ ও হাদিস কুরান পড়ার মাধ্যমে প্রকারান্তরে সেই গালাগাল দেন ও খুন করার হুমকি দেন।

তাহলে তাকেও কেন ৫৭ ধারায় বিচার করা যাবেনা?

১। সুরা আন-নিসা : ৮৯ = তাদের পাকরাও কর এবং হত্যা কর যেখানেই তাদের পাও।
২। সুরা আল-মায়েদা : ৩৩ = তাদের হত্যা করা হবে অথবা শূলে চড়ান হবে অথবা হাত ও পা বিপরীত দিক থেকে কেটে ফেলা হবে…. ইত্যাদি।
৩। সুরা আল-আনফাল : ১২ = অতএব আঘাত কর তাদের গর্দানের উপর এবং আঘাত কর তাদের আঙুলীর জোড়ায় জোড়ায়……..
৪। সুরা আত-তাওবাহ : ৫ = যেখানে পাবে সেখানে হত্যা কর, যদি তওবা, নামাজ আর যাকাত দেয় তবে মুক্তি…..
৫। সুরা আত-তাওবাহ : ২৯ = যুদ্ধ কর যে পর্যন্ত আল্লাহ ও রাসুলের উপর বিশ্বাস না আনে ও কর প্রদান না করে

৬। ‘‘আল্লাহ লানত করুন ইহুদী ও নাসারাদেরকে, তারা তাদের নবীদের কবরকে মাসজিদরূপে গ্রহণ করেছে।’’ [সহীহ বুখারী,হাদীস নং ১৩৩০, সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ১২১২]

৭। ‘‘ঐ ব্যক্তির নাক ধুলি ধুসরিত হোক যার কাছে আমার উলেস্নখ করা হয় কিন্তু সে আমার উপর সালাত পাঠ করেনি।’’ তিরমিযীর

৮। যখন তিনি শহরে প্রবেশ করলেন, তিনি বললেন- আল্লাহু আকবর , খায়বার ধ্বংস হোক। আমরা যখন কোন জাতির দ্বারপ্রান্তে উপস্থিত হই তখন সতর্ককৃতদের দিনের সূচনা অশুভজনকই হয়ে থাকে।তিনি তিন বার এ কথা বললেন। খায়বারের লোকজন তখন কাজের জন্য বের হচ্ছিল, তাদের মধ্যে কেউ কেউ বলে উঠল- মোহাম্মদ তার দল বল সহ হাজির হয়েছে। আমরা খায়বার জয় করলাম, তাদেরকে বন্দী করলাম এবং লুটপাটের মালামাল সংগ্রহ করা হলো। দাহিয়া এসে নবিকে বলল- হে নবী, বন্দিনী নারীদের থেকে আমাকে একটা নারী দিন। নবী বললেন- যাও যেটা পছন্দ হয় সেটা নিয়ে নাও। সে সাফিয়া বিনতে হুইয়াকে নিল। তখন এক লোক নবীর নিকট আসল – হে নবী, আপনি সাফিয়া বিনতে হুইয়াকে দাহিয়াকে দিলেন কিন্তু সে বানু কুরাইজা ও নাদির গোত্রের সর্দারের স্ত্রী, আর সে একমাত্র আপনারই যোগ্য। তখন নবী নির্দেশ দিলেন- দাহিয়াকে ঐ নারী সহ আমার কাছে আন।। তখন দাহিয়া সাফিয়াকে সাথে নিয়ে নবীর কাছে আসল , নবী সাফিয়াকে ভাল করে দেখলেন, অত:পর দাহিয়াকে বললেন- একে ছাড়া বাকি যে কাউকে নিয়ে নাও। আনাস আরও বলল- তখন নবী সাফিয়াকে মুক্তি দিয়ে তাকে বিয়ে করলেন। বুখারী, ভলিউম-১, বই-৮, হাদিস-৩৬৭

Print Friendly, PDF & Email

Faysal Hossain Onik