Atheist in Bangladesh

মুসলমানের রক্ত আর নাস্তিকের রক্ত

এক যুগ অাগে অামার এক বন্ধুর মা’কে হিন্দু সেজে রক্ত দিয়েছিলাম। অনেক রক্ত দরকার, কিন্তু বন্ধুর মা হিন্দু ছাড়া অন্য ধর্মের মানুষের রক্ত নিজের শরীরে নেবেন না। অামার বন্ধুর ভাষায়, – মা রক্ত ছাড়া হয়ত বাঁচবেন, কিন্তু অন্য ধর্মের মানুষের রক্ত তার শরীরে দেয়া হয়েছে জানলে তিনি নির্ঘাত হার্টফেল করে মারা যাবেন। উপায় না দেখে বন্ধুর অনুরোধে অামি সেদিন হিন্দু সেজে গিয়েছিলাম। বন্ধুর মা, অামার মাসীমা সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন – এ অানন্দের সঙ্গে বিসর্জনও ছিল কিছু। –

পাছে মাসীমা অামার পারিবারিক ধর্মের পরিচয়টি জেনে গিয়ে হার্টফেল করেন – এ ভয়ে অামি অার জীবনে অামার সেই বন্ধুর বাসায় যাইনি। কিন্তু বন্ধুদের অাড্ডায় মাসীমার জন্য অামার হিন্দু সাজার ঘটনাটা মনে করে অামরা অানন্দ পেয়েছি অনেক দিন। অাজ ঘটনাটা এজন্য লিখলাম যে, অামাকে হিন্দু সাজিয়ে সেদিন অামার বন্ধুর, বন্ধুর মা’র, কিংবা অামার – অামাদের কারো ধর্মই নষ্ট হয়নি। অথচ হিন্দু ধর্মের সমালোচনা করতে গিয়ে “ভারতবর্ষের সনাতন হিন্দু মানেই কুসংস্কারাচ্ছন্ন, গোড়া অার বর্ণবাদী” – এই কথাটা বলাতেই অামার প্রিয় বন্ধুটি হারিয়ে গেল। বন্ধু অামাকে ব্লক করে দিয়েছে।

অাজ অারো মনে পড়ছে, – দেশে থাকতে অামার সব বন্ধুরাই জানতো – অামি নাস্তিক, কিন্তু মুসলমান সেজে থাকি। তাতে বন্ধুদের কারো অাপত্তি ছিলনা। কিন্তু যখনি অামি ফেসবুকে নিজেকে নাস্তিক বলে প্রকাশ করতে শুরু করলাম, তখনি একে একে প্রায় সব বন্ধুরাই অামাকে তাদের ফ্রেন্ডলিষ্ট থেকে মুছে ফেলতে শুরু করলো।
হিন্দু সেজেই থাকো অার মুসলমান সেজেই থাকো – অসুবিধা নাই, নাস্তিক হয়েছো তো বন্ধুরা কেউ নাই।

Print Friendly, PDF & Email

ঘাতক